সমাজে মধ্যবিত্ত শ্রেণির মধ্যে রয়েছে এক গভীর দেশপ্রেম

-এ্যাকাডেমিক কাউন্সিল সভায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মশিউর রহমান

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : বাংলাদেশে সমাজের মধ্যবিত্ত শ্রেণির প্রতিটি মানুষের মধ্যে এক গভীর দেশপ্রেম কাজ করে বলে মনে করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান।

তিনি বলেন, ‘মধ্যবিত্ত শ্রেণির প্রতিটি মানুষ একটি পর্যায়ে কোন মতে খেয়ে-পরে ভালো থাকলে তাদের মধ্যে অন্যের জন্যে, সমাজের জন্যে কাজ করার একটা প্রবণতা তৈরি হয়। সমাজে যদি কারো জন্য অনগ্রসরতা তৈরি হয়, সেটা কখনো কখনো উচ্চবিত্ত শ্রেণির অতি বিত্তলোভের কারণে। কিন্তু যে মধ্যবিত্ত সমাজ বাংলাদেশে গড়ে উঠেছে তাদের মধ্যে একটা গভীর দেশপ্রেম কাজ করে। এটা আমার গভীর বিশ্বাস। সেই বিশ্বাস থেকেই আমি মনে করি শিক্ষা-আধুনিকতাসহ বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়াবে। আমরা সেই সঠিক পথেই আছি।’

৬ডিসেম্বর সোমবার অনলাইন প্লাটফর্ম জুম অ্যাপের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের ৯৪তম সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন উপাচার্য।

উপাচার্য বলেন, ‘আমি আশাবাদী এ কারণে যে, আমাদের যে যেখানেই থাকে, সবার মধ্যেই একটা কিছু করার চেষ্টা থাকে। আপনাদের পরামর্শের মধ্যদিয়ে শিক্ষায় নতুন নতুন ধারা নিয়ে আসবো। সেটি আমাদের শিক্ষার্থীরা গ্রহণ করবে। আমাদের সীমাবদ্ধতা অনেক আছে। কিন্তু চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যে চ্যালেঞ্জ সেটিকে আমাদের সহজাত স্টাইল দিয়ে মোকাবেলা করবো। এর মধ্যদিয়ে একটি মানবিক, আধুনিক, সংস্কারমূলক, প্রগতিবাদী সমাজ গড়ে তুলতে পারবো। যেটি আমাদের মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনা।’

সভায় বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য ইনকোর্স পরীক্ষা পূর্বের ন্যায় বহাল করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সভায় অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের ৪৫ জন সদস্যের মধ্যে ৪৩জন সংযুক্ত ছিলেন। সভায় বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশ গবেষণা ইনস্টিটিউটে এমফিল, পিএইচডি গবেষণার পরিধি বৃদ্ধিসহ গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়। আলোচনায় অংশ নিয়ে কাউন্সিল সদস্য প্রফেসর ড. মেজবাহ কামাল বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশ গবেষণা ইনস্টিটিউট জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের মুকুট হিসেবে পরিচিত হবে।’

শেয়ার করুন :