ক্যান্সার প্রতিরোধে যেসব নিয়ম

বিশ্বে মৃত্যুর দ্বিতীয় প্রধান কারণ ক্যান্সার। আমাদের দেশেও ক্যান্সারের রোগী বাড়ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশে রয়েছে প্রায় ১৫ লাখ ক্যান্সার রোগী। প্রতিবছর মৃত্যু হচ্ছে দেড় লাখ ক্যান্সার রোগীর। ক্যান্সার প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে পরামর্শ দিয়েছেন অধ্যাপক ডা. শুভাগত চৌধুরী,সাবেক অধ্যক্ষ, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ

প্রথমেই ক্যান্সার প্রতিরোধকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। আগাম শনাক্ত হলে কিছু ক্যান্সার ৯৫ শতাংশ নিরাময় সম্ভব, টিকা দিলে কিছু ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা একেবারেই থাকে না। আগেভাগেই সতর্ক হয়ে ক্যান্সার প্রতিরোধে সাত নিয়ম মেনে চলতে পারেন।

তামাক ব্যবহার নয়

ধূমপান করলে ফুসফুস, মুখ থেকে গলা, স্বরযন্ত্র, অগ্ন্যাশয়, মূত্রাশয়, জরায়ু আর কিডনির ক্যান্সার হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

তামাক, জর্দা, গুল চিবানো মুখগহ্বর আর অগ্ন্যাশয়ের ক্যান্সারের সঙ্গে সম্পর্কিত।
স্বাস্থ্যকর খাবার

প্রচুর ফল আর সবজি খেতে হবে। বজায় রাখতে হবে স্বাস্থ্যকর ওজন। মদ্যপান না করা ভালো। প্রক্রিয়াজাত করা মাংস খাওয়া যাবে না।

শরীর চর্চা করুন

সপ্তাহে অন্তত ১৫০ মিনিট মাঝারি অ্যারোবিক ব্যায়াম করুন। যেমন দ্রুত হাঁটতে পারেন। প্রতিদিন ৩০ মিনিট শরীর চর্চা সবচেয়ে ভালো।

রোদ এড়িয়ে চলুন

সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত রোদ এড়িয়ে চলুন। ছায়ায় থাকুন। রোদ থাকলে সানগ্লাস ব্যবহার করতে পারেন। মাথায় দিতে পারেন টুপি। জামা পরুন ঢিলেঢালা। মুখে অন্তত ৩০ এসপিএফের সানস্ক্রিন মাখুন।

টিকা নিন

হেপাটাইটিস ‘বি’ ভাইরাসের টিকা নিন। এতে লিভারের ক্যান্সার প্রতিরোধ করা যাবে। হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাস (এইচপিভি) টিকা নিলে ঠেকানো যাবে জরায়ুমুখের ক্যান্সার।

ঝুঁকিপূর্ণ আচরণ এড়িয়ে চলুন

নিরাপদ যৌনাচার করতে হবে। কারো সঙ্গে সিরিঞ্জ নিডল ভাগাভাগি করা ঠিক না।

নিয়মিত মেডিক্যাল চেকআপ

নিজে নিজকে পরীক্ষা আর স্ক্রিনিংয়ের মাধ্যমে আগাম রোগ নির্ণয় করা সম্ভব।

শেয়ার করুন :