রেশন ব্যবস্থা পুন: প্রবর্তনের দাবী বাংলাদেশ মুসলিম লীগের

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : ‘মাহে রমজানের পবিত্রতা বজায় রাখা এবং নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে’ ২ এপ্রিল বেলা ১১.০০টায় বাংলাদেশ মুসলিম লীগের উদ্যোগে পল্টন মোড়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ মুসলিম লীগের নির্বাহী সভাপতি আব্দুল আজিজ হাওলাদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত এক মানববন্ধনে উপস্থিত নেতৃবৃন্দ সর্বস্তরের মানুষের নিকট রমযানের পবিত্রতা বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, অসাধু ব্যবসায়ী সিণ্ডিকেট রূপী জালিমদের পরিকল্পিত কারসাজিতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির কারণে পবিত্র রমযানের মত মহিমান্বিত মাসেও রোজাদারদের মানবেতর জীবনযাপন করতে হবে।

দ্রব্যমূল্যের অসহনীয় ঊর্ধ্বগতিতে দিশেহারা দেশের মধ্যবিত্ত শ্রেণী, বেঁচে থাকার তাগিদে আজ আত্মপরিচয় ভুলে টিসিবির ট্রাক থেকে স্বল্প মূল্যে পণ্য সংগ্রহে, নিম্নবিত্তের সাথে একই কাতারে দাড়িয়ে প্রতিযোগিতায় অবতীর্ণ হতে বাধ্য হচ্ছে। টিসিবির ট্রাকে অসহায় মানুষের দীর্ঘসারি যেখানে ৭৪’এর মন্বন্তরের কথা স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে সেখানে, এরকম মানবিক বিষয় সমাধানে কার্যকরী তৎপরতা না দেখিয়ে সরকারের একটি অংশ, কোটি টাকা ব্যয় করে, আমদানি করা শিল্পীর গান-বাজনা নিয়ে ব্যস্ত। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণ করে জনগণের আত্মমর্যাদা সহ বেঁচে থাকার সুব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হলে, সরকার ভবিষ্যতে গণরোষে পতিত হতে পারে বলে মুসলিম লীগ নেতৃবৃন্দ আশংকা প্রকাশ করেছেন।

মুসলিম লীগ মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের বলেন, শুধু সফেদ জামা-কাপড় আর টুপির ভেতর রমযানের মহিমা ও পবিত্রতা সীমাবদ্ধ নয়। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের অন্যায্য মূল্যবৃদ্ধির কারণে সাধারণ মানুষ দুঃখ-কষ্টে পতিত হলে তা শুধু রমযানের উদ্দেশ্য ও পবিত্রতাকেই কলুষিত করবে না বরং, এজন্য দায়ী বিবেকহীনদের সংযম ও সিয়াম সাধনাকেও পরম করুণাময়ের নিকট অগ্রহণযোগ্য করে দিতে পারে। সভাপতির বক্তব্যে আব্দুল আজিজ হাওলাদার বলেন, যে সংযম প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জনকল্যাণে আসে তা সর্বোৎকৃষ্ট। তিনি সরকারের নিকট, দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ্বগতির কষাঘাতে জর্জরিত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে, দেশব্যাপী রেশন ব্যবস্থা পুনর্প্রবর্তনের জোর দাবী জানান।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের আহ্বায়ক রাকিবুর রহমান রিপন, মুসলিম লীগ স্থায়ী কমিটির সদস্য আতিকুল ইসলাম ও আনোয়ার হোসেন আবুড়ী, সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম, ও এ্যাড জসিমউদ্দীন, অতিরিক্ত মহাসচিব আকবর হোসেন পাঠান ও কাজী এ.এ কাফী, সাংগঠনিক সম্পাদক খান আসাদ, কেন্দ্রীয় নেতা এ্যাড. আফতাব হোসেন মোল্লা, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যড. হাবিবুর রহমান, এ্যাড. আবু সাঈদ মোল্লা, মো: ওয়াহিদুজ্জামান, সৈয়দ আব্দুল হান্নান নূর, আবুল কাশেম হাওলাদার, খোন্দকার জিয়াউদ্দিন, মহানগর আহ্বায়ক ইঞ্জি. ওসমান গনি ও সদস্য সচিব মামুনুর রশিদ, ছাত্রনেতা নুরুজ্জামান প্রমুখ।

 

শেয়ার করুন :