পানে আছে অনেক গুণ

নিউজ ডেস্ক: ঘরে ঘরে পানের বাটা রাখা হয় না আজকাল। তবে নিমন্ত্রণ বাড়িতে পেটপুজোর শেষে পান পাওয়াই যায়। পান কি শুধুই মুখশুদ্ধি? মোটেও নয়।

আগেকার দিনে বহু বাড়িতেই খাওয়ার পরে পান খাওয়ার চল ছিল। এই অভ্যাস এখন অনেকেরই নেই। ঘরে ঘরে পানের বাটাও রাখা হয় না আজকাল। তবে নিমন্ত্রণ বাড়িতে পেটপুজোর শেষে পান পাওয়াই যায়। পান কি শুধুই মুখশুদ্ধি? মোটেও নয়। আয়ুর্বেদ শাস্ত্র মতে, পান দূরে রাখতে পারে অনেক ধরনের শারীরিক সমস্যাও।

পান পাতার গুণাগুণ—
১। নাক থেকে রক্ত পড়া থামায়: গরমে সান স্ট্রোক হওয়ার ফলে নাক দিয়ে রক্ত পড়ে অনেকের। এই রক্তপাত কমাতে পান পাতা দাওয়াই হিসেবে কাজ করে। পান পাতা খুব তাড়াতাড়ি রক্ত জমাট বাঁধিয়ে দিতে পারে।

২। বাতের ব্যথা কমায়: যাঁদের আর্থারাইটিস আছে তাদের ব্যথা কমাতেও সাহায্য করে পান পাতা।

৩। হজমে সাহায্য করে: পান খেলে হজম ভাল হয়। গ্যাস, অম্বলের সমস্যাও কমে। এ ছাড়াও যাঁদের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা আছে তাঁদের জন্যেও পান উপকারী। গ্যাসট্রিকের ব্যথা কমাতে পান পাতা বিশেষ ভাবে সাহায্য করে।

৪। ত্বকের জন্য ভাল: পানে অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল গুণ আছে যা ব্রণ, ফুসকুড়ি সহজেই সারিয়ে তোলে। এ ছাড়াও ত্বকে অ্যালার্জি, কালো ছোপ, সান বার্ন হলেও কয়েকটা পান পাতা আর কাঁচা হলুদ একসঙ্গে বেটে লাগাতে পারেন। সুফল মিলবে।

৫। সর্দি-কাশিতে উপশম: গরমের দিনেও ঘাম বসে অনেকের সর্দি-কাশি হয়। সর্দি-কাশি সারাতেও পান বেশ উপকারী। জলে পান পাতা দিয়ে বেশ কিছুক্ষণ ফুটিয়ে নিন। গরম গরম এই পানীয় পান করলে সর্দি-কাশি থেকে দ্রুত আরোগ্য লাভ করা যায়।

৬। বিপাক হার বাড়ায়: নিয়মিত পান খেলে শরীরের বিপাক হার বাড়ে। এর ফলে রক্ত সঞ্চালনও ভাল হয়।

তবে পান খাওয়ার সময় কোন বিষয়গুলি খেয়াল রাখতে হবে?

পানের সঙ্গে জর্দা মিশিয়ে খেলে পানের সব গুণ নষ্ট হয়ে যায়

খালি পেটে পান খাওয়া উচিত নয়
পানের সঙ্গে বেশি সুপারি খাবেন না
পানের সঙ্গে বেশি খয়ের খেলে ফুসফুসে সংক্রমণ হতে পারে
পানে বেশি মাত্রায় চুন খেলে দাঁতের ক্ষতি হয়
অন্তঃস্বত্ত্বা মহিলাদের পান খাওয়া উচিত নয়

শেয়ার করুন :