“আমার বঙ্গবন্ধু” শীর্ষক মোবাইল গেমিং এ্যাপস উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে মঙ্গলবার ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকাস্থ উত্তরা মডেল টাউনে অবস্থিত বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি) অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং বিএনসিসি অধিদপ্তর এর যৌথ উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবন বৃত্তান্ত ও জীবনাদর্শ নিয়ে নির্মিত “আমার বঙ্গবন্ধু” শীর্ষক গেমিং এ্যাপস এর উপর সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।  খবর আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর)

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোরের সম্মানিত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাহিদুল ইসলাম খান, বিএসপি, এনডিসি, পিএসসি। তিনি এই গেমিং এ্যাপসটির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে সাংবাদিকদের অবহিত করতে গিয়ে বলেন, বর্তমান যুগ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি নির্ভর। বর্তমান প্রজন্ম ইন্টারনেট এবং ডিজিটাল প্লাটফর্ম মোবাইল গেমস নিয়ে ব্যস্ত থাকে। এ যুগে গতানুগতিক শিক্ষা ধারায় শিক্ষার্থীরা কোনকিছু সম্পর্কে বিশেষ করে স্বনামধন্য ব্যক্তি-বর্গের জীবনী সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করলেও হৃদয়ে খুব কমই ধারণ করে। তারা টেলিভিশন বিমুখ তাই বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলোতে বঙ্গবন্ধুর জীবনী প্রচার করা হলেও তা তরুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে না। অথচ আজকের শিশু-কিশোর এবং তরুন প্রজন্ম আমাদের আগামীর ভবিষ্যৎ। তাদের নেতৃত্বেই দেশ এগোবে উন্নয়নের শিখরে। জাতির পিতার এই মহান ত্যাগ, তিতিক্ষা এবং ভালোবাসা সকলের হৃদয়ে গ্রোথিত করা আজ সময়ের দাবী। তাই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে জাতির পিতার আবিনাশী চেতনা ও আদর্শ চির প্রবাহমান রাখার উদ্দেশে ডিজিটাল প্লাটফর্মে বর্তমান প্রজন্মকে জাতির পিতা সম্পর্কে জানানোর লক্ষ্যে ডিজাইন করা হয়েছে এ্যাপস ভিত্তিক খেলা (গেম) যার নাম “আমার বঙ্গবন্ধু”।

এ ছাড়াও, সংবাদ সম্মেলনে মোবাইল গেমিং এ্যাপসের উপর প্রতিযোগিতায় বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করা হয় এবং বয়সের ক্রমানুসারে সাজানো (১ম গ্রুপ অনুর্ধ ১০ বছর, ২য় গ্রুপ ১০-১৮ বছর এবং ৩য় গ্রুপ ১৮ তদুর্ধ) অংশগ্রহণকরীদের মধ্য হতে বিজয়ীদের জন্য পুরষ্কার হিসেবে বই, স্মার্ট ফোন, ট্যাব ও ল্যাপটপ প্রদান করা হবে বলে সকলকে অবহিত করেন। ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এই প্রতিযোগিতাটি-তে ২৬ মার্চ রাত ১২ টা পর্যন্ত অংশগ্রহণ করা যাবে। একজন প্রতিযোগী একাধিক বার অংশগ্রহণ করতে পারবেন এবং প্রতিবার অংশ নেয়ার পর সার্ভারে তা আপডেট করা হবে। প্রতি ক্যাটাগরি/বয়সের প্রতিযোগীদের মধ্য হতে ১০ জন করে সর্বমোট ৩০ জন বিজয়ী নির্বাচন করা হবে।

এ সময় বিএনসিসি সদর দপ্তরের পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 

শেয়ার করুন :