কেন এত সোনার গয়না পরতেন বাপ্পি লাহিড়ী?

নিউজ ডেস্ক: ভারতের মতো বাংলাদেশেও জনপ্রিয় ছিলেন বাপ্পি লাহিড়ী। গতকাল মঙ্গলবার মধ্যরাতে মুম্বাইয়ের ক্রিটিকেয়ার হাসপাতালে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। এক মাস হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তবে আগের দিন সোমবার তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু গতকাল তাঁর স্বাস্থ্যের অবনতি হয়। জরুরি ভিত্তিতে তাঁকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালের সূত্রে ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যম জানিয়েছে, অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়ায় (ওএসএ) আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এই গুণী শিল্পী। কাল বৃহস্পতিবার মুম্বাইয়ের পবন হান্স শ্মশানে তাঁর শেষকৃত্য হবে।

আশির দশকে হিন্দি ছায়াছবির জগতে অন্যতম জনপ্রিয় নাম বাপ্পি লাহিড়ী। বলিউডের ‘ডিসকো ড্যান্সার’, ‘চলতে চলতে’, ‘শারাবি’, বাংলায় ‘অমর সঙ্গী’, ‘আশা ও ভালোবাসা’, ‘আমার তুমি’, ‘অমর প্রেম’ প্রভৃতি ছবিতে সংগীত পরিচালনা করেছেন। গেয়েছেন বেশ কিছু জনপ্রিয় গান।

২০২০ সালে তাঁর শেষ গান ‘বাঘি-৩’-এর জন্য। জীবনকালে গান নিয়ে যেমন তিনি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন, তেমনই তাঁর পোশাকও বরাবরই আকর্ষণের কেন্দ্রে ছিল। বাপ্পি লাহিড়ী মানেই ভক্তদের কাছে আদ্যোপান্ত সোনায় মোড়া এক মানুষ। তাঁর গয়না ব্যবহার নিয়ে নানা রসিকতাও শোনা গেছে। কেন গয়না পরতেন, সেটাও জানিয়েছেন তিনি।

একাধিক সাক্ষাৎকারে বাপ্পি তাঁর সোনার গয়না প্রতি দুর্বলতার কথা জানিয়েছিলেন। তাঁর জুয়েলারি সংগ্রহ ছিল যেকোনো গয়নাপ্রেমীর কাছে ঈর্ষণীয়। তাঁকে বলিউডের ‘গোল্ডম্যান’ বলা হতো। কোনো সময়ই সোনার হার, ব্রেসলেট, আংটি ছাড়া দেখা যেত না তাঁকে।

তিনি বলেছিলেন, ‘এলভিস প্রিসলি সোনার হার পরতেন। আমি প্রিসলির বড় ভক্ত ছিলাম। আমি ভাবতাম, যদি কোনো দিন সফল হই, তাহলে নিজের অন্য রকম ভাবমূর্তি গড়ে তুলব। স্রষ্টার আশীর্বাদে সোনার মাধ্যমে সেটা করতে পেরেছি। আগে মানুষ ভাবত, আমি সবাইকে দেখানোর জন্যই সোনার গয়না পরি। কিন্তু সেটা ঠিক নয়। সোনা আমার কাছে সৌভাগ্যের বাহক, আমার এগিয়ে যাওয়ার সাহস।’ বাপ্পির ভাষায়, ‘আমার স্রষ্টার নাম সোনা! যখন থেকে সোনার গয়না পরা শুরু করেছি, আমার একের পর এক গান হিট করা শুরু করেছে। সোনা আসলে আমার জন্য সৌভাগ্যের প্রতীক। তাই এত সোনার গয়না কিনি আর পরি।’

লাহিড়ী পরিবার সূত্রে খবর, ছেলে বাপ্পা এই মুহূর্তে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন। তিনি আসার পরই হবে শেষকৃত্য। বাপ্পি লাহিড়ীর মেয়ে রেমা লাহিড়ী এবং পরিবার সূত্রে এক শোকবার্তায় বলা হয়েছে, ‘এটি আমাদের জন্য একটি গভীর দুঃখের মুহূর্ত। আগামীকাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাপ্পা আসার পর বাপ্পি লাহিড়ীর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। আমরা তাঁর আত্মার জন্য ভালোবাসা এবং আশীর্বাদ চাইছি।’

শেয়ার করুন :