নিউইয়র্ক সিটির পাশ্ববর্তী এলাকায় মহাত্মা গান্ধীর একটি ব্রোঞ্জ মূর্তি ভাঙচুর করা হয়েছে

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : নিউইয়র্ক সিটির পাশ্ববর্তী এলাকায় মহাত্মা গান্ধীর একটি ব্রোঞ্জ মূর্তি শনিবার ভাঙচুর করা হয়েছে, ভারতের কনস্যুলেট জেনারেল এই ‘ঘৃণ্য’ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

ম্যানহাটনের ইউনিয়ন স্কয়ারে অবস্থিত ৮ ফুট উচ্চতার এই মূর্তিটি কিছু অপরিচিত ব্যক্তি ভাঙচুর করেছে বলে জানিয়েছেন ভারতের কনস্যুলেট জেনারেল।

“কনস্যুলেট এই ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ” একথা উল্লেখ করে তারা জানায়, বিষয়টি নিয়ে তারা স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেছেন।

কনস্যুলেটের বিবৃতিতে বলা হয়, “বিষয়টি অবিলম্বে তদন্তের জন্য মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে এবং এই ঘৃণ্য কাজের জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের আহবান জানিয়েছে।”

মূর্তিটি গান্ধী মেমোরিয়াল ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন থেকে দান করা হয়েছিল এবং ১৯৮৬ সালের ২ অক্টোবর গান্ধীর ১১৭তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে এটি উৎসর্গ করা হয়েছিল। আমেরিকান নাগরিক অধিকার নেতা বায়ার্ড রুস্টিন অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য রেখেছিলেন।  মূর্তিটি ২০০১ সালে অপসারণ করে ২০০২ সালে বিস্তৃত বাগান এলাকায় পুনরায় স্থাপন করা হয়।

গান্ধীর মূর্তিতে হামলা এটিই প্রথম নয়, গত বছর জানুয়ারিতে অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীরা যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি পার্কে স্থাপিত গান্ধীমূর্তি ভাঙচুর করে। উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার ডেভিড শহরের সেন্ট্রাল পার্কে গান্ধীর ৬ ফুট লম্বা , ৬৫০ পাউন্ডের ব্রোঞ্জ মূর্তির গোড়ালি কেটে ফেলা হয় এবং এর অর্ধেক মুখ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

২০২০ সালের ডিসেম্বরে খালিস্তান-সমর্থকরা ওয়াশিংটন ডিসিতে ভারতীয় দূতাবাসের সামনে স্থাপিত গান্ধীমূর্তি ভাঙচুর করে। পুলিশ জানায়, ২০২১ সালের ২৭ জানুয়ারি ভোরে পার্কের এক কর্মী গান্ধীর ভাঙ্গা মূর্তিটি খুঁজে পান। হোয়াইট হাউসের তৎকালীন প্রেস সেক্রেটারি কেলেহ ম্যাকেনানি এই ঘটনাকে ‘ভয়ানক’ বলে উল্লেখ করেন।

 

শেয়ার করুন :