বিদেশে বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া না হলে হুন্ডি বাড়বে

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, ‘বিদেশে বিনিয়োগের অনুমোদন দেওয়া না হলে টাকা হুন্ডির মাধ্যমে চলে যাবে| আমাদের দেশের মানুষ অনেক বেশি সৃজনশীল এবং তারা বিদেশে বিনিয়োগ করার চেষ্টা করছেন| বিদেশে বিনিয়োগ অন্যায় কিছু না| যদি অনুমতি দেওয়া না হয়, তাহলে এটা হুন্ডির মাধ্যমে বিভিন্ন জায়গায় চলে যাবে| তার চেয়ে যদি আমরা অফিশিয়ালি অনুমোদন করি, সেটাই ভালো| দেশীয় ব্যবসায়ীদের বিদেশে বিনিয়োগ ভালো উদ্যোগ|’ এর ফলে দেশের মানুষের কর্মসংস্হান তৈরি হবে বলে তিনি মনে করেন|

৩০ জানুয়ারি রবিবার অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ভাচু‌র্য়ালি অনুষ্ঠিত অর্থনীতিবিষয়ক এবং সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন| এ সময় বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশের কাতারে| আমরা মনে করি বিদেশি বিনিয়োগ হলে সেখান থেকেও আয় আসবে| আমাদের জনগণই সেখানে গিয়ে

চাকরি করবে| কর্মসংস্হানের ব্যবস্হা হবে|’ তবে ঢালাওভাবে বিদেশে বিনিয়োগ করার সুযোগ দেওয়া হয়নি উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, যারা রপ্তানি করবেন, তাদের এই সুযোগ দেওয়া হয়েছে|

রিজার্ভ কমে যাওয়ার বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, এখন বিপুল অঙ্কের আমদানি বিল পরিশোধ করতে হচ্ছে| এতে করে রিজার্ভ কিছুটা ওঠানামা করছে|

সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় সর্বমোট ১৬টি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়| এর মধ্যে জননিরাপত্তা বিভাগের অধীন ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার (এনটিএমসি) কর্তৃক একটি ভেহিক্যাল মাউন্টেড ডাটা ইন্টারসেপ্টরি (ভিওআইপি) এবং এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সেবা ৫৬ কোটি ৩২ লাখ টাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ক্রয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে| এর আগে অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে অনুমোদনের জন্য তিনটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়| এর মধ্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীন সরকারি যানবাহন অধিদপ্তর কর্তৃক জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের জন্য ২০টি সিলভার রঙের টয়োটা হাইয়েস মাইক্রোবাস সরকারি প্রতিষ্ঠান প্রগতি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড থেকে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে কেনার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে|

 

শেয়ার করুন :