কর্তৃত্ববাদী শাসনের অবসান ঘটানোর মাধ্যমেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : গণফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সভা স্বাস্থ্যবিধি মেনে ১৫ জানুয়ারি শনিবার সকাল ১০ টায় গণফোরাম নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদের সভাপতিত্বে গণফোরাম কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ বলেন, কর্তৃত্ববাদী শাসনের অবসান ঘটানোর মাধ্যমেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়। যেখানে গণতন্ত্র থাকেনা সেখানে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হয়না। আর সুশাসন প্রতিষ্ঠিত না হলে জনগণের উপর অত্যাচার-অবিচার, জুলুম-নিপীড়ন চলতে থাকে। তথাকথিত উন্নয়নের কথা বলে জনগণের অধিকার হরণ করা হয়। আজ দেশের গণতন্ত্রকে লন্ডভন্ড করা হয়েছে। সংবিধান অবমাননা করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন, বিচার বিভাগ ও শিক্ষা ব্যবস্থা সহ গণতন্ত্র রক্ষার সকল প্রতিষ্ঠানকে পরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করা হয়েছে। গণফোরাম এই সকল নৈরাজ্য, দুঃশাসন উত্তরনে জাতীয় ঐক্যমতের সরকারকে ভিত্তি করে সকল গণতন্ত্রমনা রাজনৈতিক দল সমূহকে নিয়ে গ্র্যান্ড কনভেনশনের মাধ্যমে কেন্দ্রীভূত জুলুমবাজ সরকারের অবসান ঘটাবে।

গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক সিনিয়র এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন- কি ভয়াবহ পরিস্থিতি সামনে অপেক্ষা করছে আমরা জানিনা। তবে বুঝতে পারছি দেশের বিচার বিভাগ দুর্বল করে মানবাধিকার ব্যাপকভাবে লঙ্ঘিত হয়েছে বলেই বিশ্ব দরবারে আমাদের সম্মান ক্ষুন্ন হয়ে বিভিন্ন রকমের নিষেধাজ্ঞা আসছে আমাদের পুলিশ বাহিনী, সামরিক বাহিনী ও প্রজাতন্ত্রের বিভিন্ন দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গের উপর। একদল এটা নিয়ে প্রাথমিক ভাবে মিথ্যাচার করলেও পরে রাষ্ট্রের জনগণের কষ্টার্জিত পয়সা খরচ করে লবিষ্ট নিয়োগ করেছে। এদের লজ্জাও নেই সারাদিন মিথ্যাচার করে উন্নয়নের গল্প শোনায় যা আমাদের জনগণের জন্য বোঝা স্বরূপ। গণফোরাম জনগণের মৌলিক অধিকার ও ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে এ দুঃশাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করে জনগণের শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত করবে।

১৫ই জানুয়ারী থেকে আগামী ১৫ই ফেব্রুয়ারী-২০২২ পর্যন্ত সারাদেশে একমাস ব্যাপী সাংগঠনিক মাস পালন করবে গণফোরাম। সভায় দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম বৃদ্ধির লক্ষ্যে সারা বাংলাদেশকে ১০টি ভাগে ভাগ করে ১০টি সাংগঠনিক উপ কমিটি ও ৫টি সম্পাদকীয় উপ-কমিটি গঠিত হয়। সাংগঠনিক উপ কমিটি- চট্টগ্রাম সাংগঠনিক উপ কমিটি, মেঘনা সাংগঠনিক উপ কমিটি, ময়মনসিংহ সাংগঠনিক উপ কমিটি, ঢাকা সাংগঠনিক উপ কমিটি, সিলেট সাংগঠনিক উপ কমিটি, পদ্মা সাংগঠনিক উপ কমিটি, খুলনা সাংগঠনিক উপ কমিটি, বরিশাল সাংগঠনিক উপ কমিটি, রাজশাহী সাংগঠনিক উপ কমিটি, রংপুর সাংগঠনিক উপ কমিটি, ঢাকা মহানগর সাংগঠনিক উপ কমিটি।
সম্পাদকীয় উপ কমিটি- তথ্য ও গণমাধ্যম উপ কমিটি, আইন উপ কমিটি, ছাত্র উপ কমিটি, যুব ও ক্রীড়া উপ কমিটি, শিক্ষা উপ কমিটি।

সভায় অন্যান্য নেতৃবৃন্দের আলোচনায় উঠে আসে বাংলাদেশের চলমান সংকট নিরসন করতে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য কল্যানমূখী একটি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করার লড়াই চালিয়ে যাবে গণফোরাম।

আরও বক্তব্য রাখেন গণফোরাম নির্বাহী সভাপতি এডভোকেট এ,কে,এম জগলুল হায়দার আফ্রিক, এডভোকেট মহসিন রশিদ, সভাপতি পরিষদের সদস্য, এডভোকেট ফজলুল হক সরকার, শ্রী রতন ব্যানার্জী, আতাউর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা খান সিদ্দিকুর রহমান, এডভোকেট হোসেন আলী পেয়ারা, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব খান ফারুক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মোঃ হেলাল উদ্দিন, লতিফুল বারী হামিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ রওশন ইয়াজদানী (ঢাকা বিভাগ), এডভোকেট তারিকুর রউফ(চট্টগ্রাম বিভাগ), আলীনূর খান বাবুল(খুলনা বিভাগ), মামুনূর রশিদ মামুন (রাজশাহী বিভাগ), এড. এ কে এম রায়হান উদ্দিন (ময়মনসিংহ বিভাগ), তথ্য ও গণমাধ্যম সম্পাদক মুহাম্মদ উল্লাহ মধু, সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক আব্দুল হামিদ মিয়া, আইন ও মানবাধিকার সম্পাদক এডভোকেট বিশ^জীৎ গাঙ্গুলী, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক তাজুল ইসলাম, শ্রম সম্পাদক এডভোকেট মোশারফ হোসেন তালুকদার, জলবায়ু ও পরিবেশ সম্পাদক রনজিত সিকদার, ছাত্র সম্পাদক এডভোকেট মোঃ সানজিদ রহমান শুভ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অহিদুল হক, ময়নুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান বাবলু, আব্দুস্ সাত্তার পাঠান, উজ্জল ভৌমিক, মঞ্জুর আলম, হারুন-অর রশিদ, এম. হামিদুল হক, শাহাবুদ্দিন শাবু, আতিয়ার রহমান আতিক, ফজলুল বারী ইন্টু, শ্যামল কুমার সাহা, ওয়াজিউল্লাহ্ মন্টু, শফিকুল ইসলাম ভূইঞা, এডভোকেট নাজমুল হক পিন্টু, এডভোকেট মহসিন শেখ, আমির হোসেন, এডভোকেট শহীদুল্লাহ ভূইঞা, অধ্যাপক মহব্বত খান, মোশারফ হোসেন জিকু, হাবিবুর রহমান বুলু, জনাব এম.এ. কাদের মার্শাল, এরশাদ জাহান সুমন, কবিরুজ্জামান, বেলায়েত হোসেন, আমজাদ হোসেন চৌধুরী, আব্দুল হাকিম, শেখ শহীদুল ইসলাম, কুদরত উল্লাহ, কৃষিবিদ জাফর সাদেক, মশিউর রহমান বাবুল, এডভোকেট আসাদুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার শিবু প্রসাদ দাশ, রফিকুল ইসলাম, কামাল উদ্দিন সুমন, সায়ফুল আলম দুলাল, এডভোকেট আব্বাস আলী, রাশেদুল আলম লালু, প্রভাষক জি.এম. জাহাঙ্গীর হোসেন, আজাদ হোসেন, রবিউল ইসলাম রবি, ইসমাইল স¤্রাট, জান্নাতুল মাওয়া, এডভোকেট এমদাদুল হক, আশরাফুল আলম পর্বত, রিয়াদ হোসেন, আনোয়ার ইব্রাহীম, রাজেস দাস জনি, হাজী আশ্রাফ বাবু সরকার, ডা. আশীষ বড়–য়া, আলহাজ¦ মামুন প্রধান, মোঃ গুলজার হোসেন, গুলনাহার বেগম, খন্দকার আনিসুর রহমান পিনু, এম আর মামুন, এরফান উদ্দিন আন্টু, মাহফুজুর রহমান মাসুম, অখিল কর্মকার, আমিনুল ইসলাম, নিজাম উদ্দিন, শেখ মোঃ ইসমাইল আলী, মতিউর রহমান, নূরনবী, ফারুক হোসেন, সুলতান বাহাদুর, ডাঃ ফজলুল কাদের, শওকত আলী, ইমাম হোসেন, মোঃ আশরাফ হোসেন, মোঃ তরিকুল ইসলাম, আবু আব্দুল্লাহ, মোঃ আজহার আলী, আশরার আলী খান, শাহেদ আজমী আতিক, আবু জাফর শিহাব, রাশেদ মিয়া, আব্দুর রউফ, মোঃ তৌফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

শেয়ার করুন :