মালিতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর শান্তিরক্ষা কন্টিনজেন্ট প্রতিস্থাপন

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : বাংলাদেশ বিমান বাহিনী রিপাবলিক মালিতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে (MINUSMA) নিয়োজিত কন্টিনজেন্টের মোট ১১০ জন শান্তিরক্ষী প্রতিস্থাপন করতে যাচ্ছে। বর্তমানে মালিতে অবস্থানরত কন্টিনজেন্টটি নতুন ১টি কন্টিনজেন্ট দ্বারা প্রতিস্থাপনের অংশ হিসেবে বিমান বাহিনীর ৭০ জন সদস্য ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্স এর একটি বিশেষ বিমানে (Boieng 737-800) বৃহস্পতিবার ৬ জানুয়ারি ২০২২ মালির উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেছেন। কন্টিনজেন্টের বাকি সদস্যরা আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২ তারিখে মালি গমন করবেন। খবর আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর)

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর এই কন্টিনজেন্টের নেতৃত্বে থাকবেন গ্রুপ ক্যাপ্টেন মোঃ রবিউল হাসান, এএফডব্লিউসি, পিএসসি। উল্লেখ্য, মালিতে বিবাদমান সংঘাত নিরসনে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সদস্যরা অত্যন্ত দক্ষতা, পেশাদারিত্ব এবং আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে সে দেশের সরকার এবং আপামর জনসাধারণের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। তাঁদের অর্জিত এ সুনাম ও সাফল্য অক্ষুন্ন রেখে শান্তিরক্ষীরা ভবিষ্যৎ দিনগুলোতে যেন আরো উৎকর্ষতা অর্জন করতে পারে, এ কামনা করে ঘাঁটি বাশারে এক মোনাজাত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সহকারী বিমান বাহিনী প্রধান (পরিচালন) এয়ার ভাইস মার্শাল মোঃ শফিকুল আলম, বিবিপি, ওএসপি, বিএসপি, এনডিসি, এফএডব্লিউসি, পিএসসি বাশার ঘাঁটিতে কন্টিনজেন্ট এর সদস্যদের আনুষ্ঠানিক বিদায় জানান।

এর আগে ০২ জানুয়ারি ২০২২ তারিখে বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান, বিবিপি, বিইউপি, এনএসডব্লিউসি, এফএডব্লিউসি, পিএসসি মালিগামী বিমান বাহিনী কন্টিনজেন্ট সদস্যদের উদ্দেশে ব্রিফিং প্রদান করেন। এসময় তিনি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে তাদেরকে সততা, পেশাদারিত্ব ও আন্তরিকতার সাথে অর্পিত দায়িত্ব পালন করে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী তথা দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনার আহবান জানান এবং করোনা ভাইরাস এর বিস্তার রোধ ও এতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমাতে বিশেষ সতর্কতা অনুসরণের পরামর্শ দেন।

 

শেয়ার করুন :