বান্দরবানে সন্তানদের তালাবদ্ধ করে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : বান্দরবানের লামায় দুই শিশুসন্তানকে ঘরে আটকে রেখে প্রবাসীর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে রাতভর ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় ওই নারীকে মারধর এবং বসতবাড়িতে লুটপাট করে দুর্বৃত্তরা। বুধবার ২২ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে উপজেলার রুপসী পাড়া ইউনিয়নের বৈদ্যভিটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ভুক্তভোগী নারী তার দুই শিশুসন্তানকে নিয়ে নিজ বাড়িতে একা থাকতেন। বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক ২টার দিকে বাথরুমে যাওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হলে দুর্বৃত্তরা তার মুখ চেপে ধরে। এ সময় তার দুই শিশুকে ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে। পরে রাতভর ধর্ষণ ও মারধর করা হয়।

ধর্ষণের পর দুর্বৃত্তরা বাড়ির আলমারি ভেঙে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে যায় বলে অভিযোগ গৃহবধূর।

সকালে পার্শ্ববর্তী এক নারী ওই বাড়িতে পানি আনতে গেলে ঘরের জানালা দিয়ে দুই শিশুকে কান্না করতে দেখেন। তিনি এগিয়ে গেলে প্রবাসীর স্ত্রীকে বাড়ির পেছনে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় দেখেন। পরে জানাজানি হলে স্বজন ও প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন। খবর পেয়ে সকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় ওই নারীকে উদ্ধার করে।

লামা থানা উপপরিদর্শক মোল্লা রমিজ জাহান জুম্মা বলেন, ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয়দের সহায়তায় রশি কেটে ওই নারীকে উদ্ধার করা হয়। ভিকটিমকে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য বান্দরবান জেলা সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ সেন্টারে পাঠানো হচ্ছে।

লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। দোষীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে স্বামী-সন্তানকে জিম্মি করে হত্যার ভয় দেখিয়ে কক্সবাজারে পর্যটক গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করেন তিন যুবক। পরে কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের জিয়া গেস্ট ইন নামের হোটেল থেকে বুধবার রাত ২টার দিকে তাকে উদ্ধার করে র‍্যাব। এ ঘটনায় হোটেল ম্যানেজারকে আটক করা হয়েছে।

 

শেয়ার করুন :