বিজয়ের ৫০ বছরেও শোষণ থেকে মুক্তি মেলেনি

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : স্বাধীনতা যুদ্ধে গৌরবময় বিজয় অর্জনের মাধ্যমে বাঙালি জাতি বিশ্বের দরবারে স্বতন্ত্র পরিচয় লাভ করেছে বলে মন্তব্য করে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, বাঙালির জাতীয় জীবনে বিজয় দিবসের তাৎপর্য অনস্বীকার্য। বিজয়ের ৫০ বছরেও শোষণ থেকে মানুষের মুক্তি মেলেনি।

বৃহস্পতিবার ১৬ ডিসেম্বর সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ও ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি’র পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পশ্চিম পাকিস্তানিরা বাঙ্গালিকে শোষণ করত। আর এখন বাঙ্গালিরা শোষিত হচ্ছে নিজ দেশের লুটেরাদের কাছেই। প্রতিবছর বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার বিদেশে পাচার হচ্ছে, বেগমপাড়া তৈরি হচ্ছে শোষণের টাকায়। লুটেরা ও শোষকরা দেশটাকে, দেশের রাজনীতিকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করছে।

তিনি আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতির এক চেতনার নাম।  আর বিজয় দিবস সেই চেতনাকে ছড়িয়ে দিয়েছে কোটি বাঙালির প্রাণে। ’৭১ এর স্বাধীনতা সংগ্রাম আমাদের শিখিয়েছে কীভাবে অন্যায়, অবিচার, শোষণ-নিপীড়নের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে হয়। প্রতি বছর বিজয় দিবস আমাদের মনে অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার প্রেরণা দিয়ে যায়। তরুণ প্রজন্মের উচিত লাখো শহিদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বিজয়ের চেতনায় উদ্দীপ্ত হয়ে দেশবিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা।

তিনি মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুবিবুর রহমানসহ যাদের অবদান ও আত্মত্যাগের মাধ্যমে স্বাধীন-সার্বভৌম জাতিরাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা হয়েছে তাদের অমর স্মৃতির প্রতি গভীরতম শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, বাংলাদেশ ন্যাপ যুগ্ম মহাসচিব কৃষক মো. মহসিন ভুইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, জাতীয় নারী আন্দোলন সভাপতি মিতা রহমান, সাধারণ সম্পাদক নাজমা আক্তার প্রমুখ।

এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা বলেন, বিজয়ের চেতনায় উদ্দীপ্ত হয়ে প্রত্যেক বাঙালির উচিত সারা বছরই দেশ-জাতি, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের পক্ষে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে কাজ করে যাওয়া। যারা স্বাধীনতা সংগ্রাম ও বিজয়ের ইতিহাস বিকৃত করে পরবর্তী প্রজন্মকে লক্ষ্যভ্রষ্ট করতে সচেষ্ট তাদেরকে চিহ্নিত করে, তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া বাঙালির জাতীয় কর্তব্য।

 

শেয়ার করুন :