বিশ্বব্যাংককে একটি ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প গ্রহণের আহবান জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : রাজধানীর চারপাশের নদী পুনরুজ্জীবিত করার মাধ্যমে ঢাকা শহরকে আরও নান্দনিক শহর ও যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করার লক্ষ্যে বিশ্বব্যাংককে একটি ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল

৮ অক্টোবর বিশ্ব ব্যাংকের দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শেফার ও সংস্থার একটি প্রতিনিধিদলের সাথে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল সভায় তিনি এই আহ্বান জানান। বিশ্বব্যাংকের বার্ষিক সভায় যোগদানের অংশ হিসেবে তিনি এই সভা করেন।

ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প গ্রহণের অনুরোধের প্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাংক ভাইস প্রেসিডেন্ট এ বিষয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বৈঠকে অর্থমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে অন্যান্যের মধ্যে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব ফাতিমা ইয়াসমিনসহ সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন অংশগ্রহণ করেন।

সভায় অর্থমন্ত্রী তার বক্তব্যে বাংলাদেশের চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে সহায়তা দেওয়ায় বিশ্বব্যাংককে ধন্যবাদ জানান। তিনি বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে সহজশর্তের অর্থায়ন বাড়ানোর পাশাপাশি উন্নত প্রযুক্তি হস্তান্তর ও বেসরকারিখাতে সহযোগিতা বৃদ্ধির প্রস্তাব করেন।

তিনি প্রকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও ঋণ পরিশোধের ক্ষেত্রে সক্ষমতার কথা বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধিদলকে অবহিত করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, কোভিড অতিমারিতে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও জনগণকে বিভিন্ন ধরণের সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি সঠিক পথে পরিচালিত হচ্ছে। যার ফলশ্রুতিতে এই ক্রান্তিকালেও বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের জরিপ অনুযায়ী বাংলাদেশ শীর্ষ পাঁচটি সহনশীল অর্থনীতির দেশের মধ্যে রয়েছে।

সভায় হার্টউইগ শেফার ইন্টারন্যাশনাল ডেভলপমেন্ট এসোসিয়েশনের (আইডিএ) সম্পদের সর্ববৃহৎ ব্যবহারকারি দেশ হিসেবে বাংলাদেশের সাফল্যের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি আইডিএ’র অর্থায়নে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে রোল মডেল হিসেবে অভিহিত করেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের দক্ষতা ও সাফল্যকে বিশ্বব্যাংক ও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) বার্ষিক সম্মেলনে যথার্থভাবে তুলে ধরতে হবে। যেন ধনী দেশের অংশগ্রহণ বাড়ানোর ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

হার্টউইগ শেফার বিশ্বব্যাংকের আইডিএ সহায়তা গ্রহণের ৫০ বছর পূর্তি এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের ৫০বছর পূর্তিতে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামালের মাধ্যমে বাংলাদেশের সরকার ও জনগণকে শুভেচ্ছা জানান।

এছাড়া তিনি দারিদ্র বিমোচন, দুর্যোগ ও জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাত মোকাবেলায় বাংলাদেশের গৃহীত টেকসই পরিকল্পনা ও অর্জিত সাফল্যরও প্রশংসা করেন। এ সকল ক্ষেত্রে বাংলাদেশ বিশ্বে নেতৃত্ব প্রদান করতে পারে বলে মত প্রকাশ করেন।

 

শেয়ার করুন :