ইউরোপে আসছে ভ্যাকসিনের ডিজিটাল সার্টিফিকেট

নিউজ ডেস্ক: ইউরোপে আগামী জুন মাসেই আসছে ভ্যাকসিনের ডিজিটাল পাসপোর্ট বা গ্রিন সার্টিফিকেট। মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) ইউরোপীয় কমিশনার ফর ইন্টারনাল মার্কেট ‘থিয়েরি ব্রেটন’ ইইউ ভ্যাকসিন পাসপোর্টগুলির প্রোটোটাইপ প্রকাশ করেছেন।

তিনি আরটিএল রেডিও এবং টিভি চ্যানেল এলসিআই দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেন, সার্টিফিকেটে সংযুক্ত থাকবে, নাগরিকদের ভ্যাকসিনের তথ্য, কভিড টেস্টের রেজাল্ট এবং নাগরিক কভিডে আক্রান্ত হয়েছিলো কি না তার বিষদ বিবরণ। গত ১৭ মার্চ ইউরোপীয় কমিশন সেই ডিজিটাল সার্টিফিকেট প্রনোয়নের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব করেছে। যাতে করোনা মহামারির এই সময়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভিতরে এবং বাহিরে নাগরিকগণ নিরাপদে যাতায়াত করতে পারেন। এই সার্টিফিকেট যতোদিন করোনা মহামারি থাকবে শুধুমাত্র ততোদিন কার্যকর থাকবে। এই সার্টিফিকেটটি প্রত্যেকটি নাগরিকের জন্য সম্পূর্ণ ফ্রি তার জন্য তাদের কোনো খরচ বহন করতে হবেনা।

নিরাপত্তা এবং বিশ্বস্ততার জন্য এই সার্টিফিকেটে কিউআর বারকোড সংযুক্ত থাকবে। ভেল্যুয়ছ অ্যান্ড ট্রান্সপেরেন্সির ভাইস প্রেসিডেন্ট, ভরা জৌরোভ বলেন, ইউরোপীয় নাগরিকরা যাহাতে ডিজিটাল গ্রিন সার্টিফিকেট থেকে উপকৃত হয়ে স্বাধীন এবং মুক্তভাবে চলাচল করতে পারে তা আমাদের নিশ্চিত করা। আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো, এমন একটি সিস্টেম চালু করা, যা ব্যবহারের জন্য সহজ, অ-বৈষম্যমূলক এবং সুরক্ষিত সরঞ্জাম সরবরাহ করা যা ডেটা সুরক্ষাকে সম্পূর্ণ সম্মান করে। এবং আমরা অন্য পার্টনারদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সংযোগের দিকে কাজ করে যাচ্ছি।

কমিশনার ফর জাস্টিস, দিদিয়ের রেয়ান্ডারস বলেন: আমরা ইইউ নাগরিক এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা যাতে নিরাপদে এবং ন্যূনতম বিধিনিষেধের সাথে এই গ্রীষ্মে ভ্রমণ করতে পারেন তা নিশ্চিত করার জন্য একটি ইউরোপীয় পদ্ধতি গ্রহণ করছি। তবে এই ডিজিটাল সার্টিফিকেটটি কোনো অবস্তাতেই চলাচলের জন্য পূর্ব শর্ত হবে না এবং এটি কোনোভাবেই বৈষম্যমূলক হবে না। ইইউ-এর একটি সাধারণ দৃষ্টিভঙ্গি কেবল আমাদের ইইউর মধ্যে ধীরে ধীরে মুক্ত চলাচল পুনরুদ্ধার করতে এবং খণ্ডন এড়াতে সহায়তা করবে না, বরং বৈশ্বিক মানদণ্ডকে প্রভাবিত করার এবং ডেটা সুরক্ষার মতো আমাদের ইউরোপীয় মানগুলির উপর ভিত্তি করে উদাহরণের মাধ্যমে নেতৃত্ব দেওয়ারও এটি একটি সুযোগ তৈরি করবে!

শেয়ার করুন :