‘ বাংলাদেশের উন্নতি দেখে আমি আনন্দিত ’, ভূয়সি প্রশংসা নেপালের রাষ্ট্রপতির

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। গত কয়েক বছরে বাংলাদেশ জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করেছে, দারিদ্রতা কমিয়েছে। বাংলাদেশের উন্নতি দেখে আমি আনন্দিত। বাংলাদেশ থেকে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে বলে মন্তব্য করেছেন নেপালের রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভাণ্ডারি।

মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ‘মুজিব চিরন্তন’ প্রতিপাদ্যে আয়োজিত ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার ষষ্ঠ দিন ২২ মার্চ সোমবার সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে আজকের থিম ‘বাংলার মাটি আমার মাটি’।’অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ ও সভাপতির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানানোয় বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিদ্যা দেবী ভাণ্ডারি বলেন, ভৌগলিক নিকটতা বাংলাদেশ ও নেপালকে আরও কাছাকাছি আসার সুযোগ করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক নেতৃত্বের পথে নিয়ে গিয়েছিলেন। নেপালের কমিউনিস্ট পার্টি ক্ষমতায় এসেই বঙ্গবন্ধুকে সম্মানজনক উপাধিতে ভূষিত করেছিলো।

বিদ্যা দেবী বলেন, ৮ এপ্রিল ১৯৭২ সালে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের পর থেকেই সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হয়েছে। দুই দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কে ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা মুক্ত বাণিজ্যিক সম্পর্কে আগ্রহী। আমরা আশা করবো, এই ব্যাপারে খুব দ্রুতই চুক্তি হবে। আমরা চাই- সৈয়দপুর বিমানবন্দরের সঙ্গে সরাসরি নেপালের বিরাটনগর বিমানবন্দরের যোগাযোগ চালু হোক।

 

শেয়ার করুন :