বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার চুরি: যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

নিউজ ডেস্ক: গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে ৪৯টি কম্পিউটার চুরির মামলায় বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার পুলিশ মুকসুদপুর উপজেলার জলিরপাড়ে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার পলাশ শরীফ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপীনাথপুর ইউপি যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি। তিনি ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম শরীফ ওরফে লাচ্চু শরীফের ভাই। পলাশ শরীফ গত উপজেলা নির্বাচনে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা থেকে ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন বলে স্থানীয়রা জানায়।

গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম পলাশ জানান, রোববার দুপুরে অভিযান চালিয়ে গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার জলিরপাড় থেকে পলাশ শরীফকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গত বছরের ২৬ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের একুশে ফেব্রুয়ারি গ্রন্থাগার থেকে ৪৯টি কম্পিউটার চুরি হয়। এ ঘটনায় ওই বছরের ১০ অগাস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. নূরউদ্দিন আহমেদ বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি মামলা করেন।

পরে রাজধানীর এক হোটেলে অভিযান চালিয়ে ৩৪টি কম্পিউটার উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় এখন পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীসহ মোট নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহেদ মাহামুদ বাপ্পী জানান, কম্পিউটার চুরির সাথে যুবলীগ নেতা পলাশ শরীফ জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে। সে কারণে গত ১৩ অগাস্ট জেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পরামর্শে যুবলীগ থেকে পলাশকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চুরি যাওয়া ৪৯টি কম্পিউটারের মধ্যে ৩৪টি উদ্ধার করেছে পুলিশ। কিন্তু এখন পর্যন্ত বাকি ১৫টি কম্পিউটারের হদিস মেলেনি।

শেয়ার করুন :