ইসরাইলে পার্লামেন্ট বিলুপ্ত

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : ইসরাইলে বার্ষিক বাজেট অনুমোদনের সময়সীমা অতিক্রম হওয়ার পর এ পার্লামেন্ট বিলুপ্ত হয়েছে। এর ফলে দেশটিতে দুই বছরের মধ্যে চতুর্থ দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সবকিছু ঠিক থাকলে ২০২১ সালের ২৩ মার্চ নির্বাচন হবে।

প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর লিকুদ পার্টি এবং এর প্রধান শরিক দল ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টি। গত বছর বহু বিতর্কের পর এপ্রিলে এই দুটি দল একসঙ্গে জোট সরকার গঠন করেছিল। ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টির নেতা পররাষ্ট্রমন্ত্রী বেনি গ্যানটজ। ইসরায়েলের রাজনীতিতে তিনি নেতানিয়াহুর কড়া সমালোচক হিসেবে পরিচিত। তবু তিনি জোটে অংশ নিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী হওয়ার লক্ষ্যে। ঠিক হয়েছিল, ২০২১ সালে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলাবেন তিনি।

এবারের বাজেট অধিবেশনে আগের সুর বদলে যায়। গ্যানটজ চেয়েছিলেন ২০২০-২১ সালের বাজেট পেশ করবেন নেতানিয়াহু। কিন্তু নেতানিয়াহু কেবল ২০২০ সালের বাজেট পেশ করতে রাজি হন। এ নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক। শেষ পর্যন্ত দুই দলই পার্লামেন্টে একটি বিল নিয়ে আসে, যা তাদের বাজেট পেশ করার জন্য আরো সময় দেবে। কিন্তু পার্লামেন্ট তা খারিজ করে দেয়। ফলে ফের নির্বাচনের পরিস্থিতি তৈরি হয়। পার্লামেন্টের সর্বশেষ পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনের সমাপ্তি ঘোষণা করে স্পিকার ইয়ারিভ লাভিন বলেন, ‘আমরা আবারও নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের সামনে একটি কঠিন সময় আসছে। ইসরাইলের ২৩তম পার্লামেন্টের দরজা এখন বন্ধ।’

ইসাইলের বর্তমান আইন অনুযায়ী, ২০২১ সালের ২৩ মার্চ ইসরাইলে আগাম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আগাম নির্বাচনের পর গঠিত নতুন মন্ত্রিপরিষদ দায়িত্ব গ্রহণ না করা পর্যন্ত দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নেতানিয়াহু তার পদে বহাল থাকবেন। উল্লেখ্য, দুই বছরেরও কম সময়ের মধ্যে এটি হবে ইসরাইলের চতুর্থ নির্বাচন।

 

শেয়ার করুন :