সমাজ উন্নয়নে জয়িতা সম্মাননা পেলেন চক্ষুবিজ্ঞানী ডা: হুমায়ুন কবির কন্যা

এস এম হৃদয় রহমান, ঢাকা: কুমিল্লার তিতাস উপজেলার কৃতি সন্তান, বাংলাদেশের বরেণ্য চক্ষু বিজ্ঞানী ও কেশবপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত ডা: হুমায়ুন কবিরের কন্যা এবং কেশবপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমান সভাপতি ফারহানা আফরোজা সরওয়ার সমাজ উন্নয়নে অসমান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ জয়িতা সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন।

“ কমলা রঙের বিশ্বে নারী বাধার পথ দেবেই পাড়ি”এই প্রতিপাদ্য কে সামনে নিয়ে  ৯ ডিসম্বের বুধবার সকালে তিতাস উপজেলার পরিষদ মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে “ জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ ” কর্যক্রমের আওতায় জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ফারহানা আফরোজা সরওয়ারসহ আরও চার জন নারীকে বিভিন্ন ক্যাটগরিতে জয়িতা সম্মাননা দেয়া হয়।

তিতাস উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাম্মৎ রাশেদা আক্তার এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন এবং জয়িতাদের সংবর্ধিত করেন কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস) আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরি। বক্তব্য রাখেন তিতাস উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি রুবাইয়া খানম প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান মিয়া।

তিতাস উপজেলার পরিষদ মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখছেন কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস) আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরি।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস) আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরি ভার্চুয়াল সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, ‘জয়িতাদের সম্মাননার মধ্যদিয়ে আমরা চাই দেশে নারীর ক্ষমতায়ন হউক। এই সম্মাননার মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। জননেত্রী শেখ হাসিনা চেষ্টা করে যাচ্ছেন, আমরাও চেষ্টা চালিয়ে যাব নারীর ক্ষমতায়নে।’

তিতাস উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাম্মৎ রাশেদা আক্তার বলেন, ` আমি একজন নারী হিসেবে গর্বিত যে নারীদেরকে নিয়ে এরকমন একটা সম্মাননার আয়োজন বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে করা হয়েছে। আমাদের নারীদের এখন এগিয়ে যাবার সময়। পিছিয়ে থাকার কোন সময় এখন নয়। নারীরা সর্বক্ষেত্রে আরও এগিয়ে যাবে সেটাই সবার প্রত্যাশা।’

তিতাস উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) রুবাইয়া খানম বলেন, ‘যুগ এগিয়ে যাচ্ছে, নিজেকে স্বাবলম্বী করলে এটা সংসারের জন্যও ভাল। নিজের ভবিষ্যতের জন্যও ভাল। যারা জয়িতার সঙ্গে যুক্ত আছেন তারা অন্যদেরকেও চেষ্টা করবেন এখানে যুক্ত করতে। তাতে করে তারাও স্বাবলম্বী হতে পারবে।’

সম্মাননা পাওয়া অন্যান্য জয়িতারা হলেন-  নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করেছেন যে নারী ক্যাটাগরিতেজাহানারা। সফল জননী নারী ক্যাটাগরিতে মাহফুজা আক্তার, অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী রহিমা আক্তার, শিক্ষা চাকুরী ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী নারী নাছরিন আক্তার।

 

শেয়ার করুন :