বঙ্গবন্ধুর ভাষ্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা : রাতের আঁধারে একদল কুচক্রী মহল দ্বারা কুষ্টিয়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ ও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যদের সংগঠন বাংলাদেশ  বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদ।

৫ ডিসেম্বর শনিবার এক বিবৃতিতে বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদ বলেছে, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে দেশ আজও স্বাধীন হতো না, পরাধীন থাকতো। দেশের মানুষ পাকিস্তানের গোলাম হয়ে থাকতো। মহান মুক্তিযুদ্ধের বিজয় অর্জনের এই মাসে একদল দুস্কৃতিকারী রাতের আধারে জাতির পিতার ভাস্কর্য ভাঙার মতো ধৃষ্টতা দেখিয়েছে। আমরা এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি। যারা জাতির পিতাকে অবমাননা ও অমান্য করে তারা স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন বাংলাদেশের অস্তিত্বের বিরোধী। ‘

বিবৃতিতে পরিষদ আরও বলেছে, ‘হঠাৎ করে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ইস্যু তৈরি করতে একটি বিশেষ মহলের ইন্ধন রয়েছে বলে আমরা বিশ্বাস করি। তাদের প্ররোচনায় এই ইস্যু সামনে নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের এই দুস্কর্ম বাংলাদেশের সংবিধান লঙ্ঘনের শামিল। হাজার বছরের পরিসরে যে অসাম্প্রদায়িক সংস্কৃতি এদেশে গড়ে উঠেছে তা এই স্বাধীনতা বিরোধী চক্র মানতে পারছে না। তারা এই দেশকে পাকিস্তানের সাম্প্রদায়িক ভাবধারায় ফিরিয়ে নিতে চায়। এই সব সংশ্লিষ্ট ঘটনার সঙ্গে যুক্ত সেই সব রাতের আধারের শক্তি ও  মদদদাতাদের অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। ‘

 

শেয়ার করুন :