জার্মান নারী ৬৩ কোটি টাকা দান করলেন

নিউজ ডেস্ক: জার্মানির এক নারী তার ৭৫ লাখ ডলার বা ৬৩ কোটি ৫৯ লাখ ৩৫ হাজার ৬৫০ টাকার সম্পদের উত্তরাধিকারী করে গেছেন তার এলাকাবাসীর উন্নতির জন্য। এই অর্থে সেখানকার বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণ হবে। এই নারীর নাম রেনাটে ওয়েডেল। তিনি ১৯৭৫ সাল থেকে স্বামী আলফ্রেড ওয়েডেলের সঙ্গে জার্মানির কেন্দ্রীয় অঞ্চল হেসে’র ওয়ালডসোমসে বসবাস করতেন। এই এলাকায় রয়েছে ৬টি গ্রাম। আলফ্রেড ওয়েডেল ছিলেন একজন সফল ও সক্রিয় শেয়ার ব্যবসায়ী। তিনি ২০১৪ সালে মারা যান। এরপর ২০১৬ সাল থেকেই ফ্রাঙ্কফুর্টে একটি নার্সিং হোমে অবস্থান করছিলেন রেনাটা।

তিনি ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে মারা যান ৮১ বছর বয়সে। এ বছর এপ্রিলে স্থানীয় প্রশাসন জানতে পারে রেনাটা বিপুল অংকের অর্থ রেখে গেছেন ব্যাংক ব্যালান্স, শেয়ার হিসেবে। এ ছাড়া আছে মূল্যবান সম্পদ। উত্তরাধিকার সূত্রে এর আসল মালিক হওয়ার কথা ছিল রেনাটার এক বোনের। কিন্তু স্থানীয় মিডিয়া হেসেনশাউ রিপোর্ট করেছে যে, তিনিও মারা গেছেন। এ খবরে কর্তৃপক্ষ হতাশ হয়ে পড়ে। স্থানীয় মেয়র বার্নড হেইনে বলেছেন, রেনাটা যা করে গেছেন প্রথমে আমি মনে করেছিলাম এটা সম্ভব না। মনে হয়েছিল কিছু একটা ভুল হয়েছে। কিন্তু না, এটাই সত্যি।

এখন স্থানীয় মানুষের বিভিন্ন ফ্যাসিলিটি এবং অবকাঠামো নির্মানে ব্যবহার করা হবে ওই সম্পদ। এ জন্য ওয়ালসোমস সম্প্রদায় ওয়েডেল দম্পত্তিকে এতটা উদারতা দেখানোর জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন। কমিউনিটি থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমরা এই অর্থকে অত্যন্ত দায়িত্বশীলের মতো ব্যবহার করবো। স্থানীয় সম্প্রদায়ের যাতে ভালো হয় এবং দাতারাও সম্মানিত হন এমন সব কাজ করা হবে। এসব অর্থ সাইকেল চালানোর পথ, বিভিন্ন ভবন , কিন্ডারগার্টেন উন্নয়নে ব্যবহার করা হবে। কেউ বলছেন, আউটডোর পুল, গণপরিবহন ও স্থানীয় শিশুদের ফ্যাসিলিটির জন্য এই অর্থ ব্যবহার করা উচিত।

শেয়ার করুন :