নরসিংদীতে স্পিনিং মিল শ্রমিককে গণধর্ষণের অভিযোগ

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : নরসিংদীর শহরে এক স্পিনিং মিল শ্রমিককে গণধর্ষণের অভিযোগ মামলা দায়ের করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে নির্যাতিতা ওই নারী সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো নরসিংদী চৌয়ালা এলাকার ওয়ারিশ আলীর ছেলে মোঃ মনির (৩২), মতি মিয়ার ছেলে মোঃ হাসান (২১)।

জেলা পুলিশ নরসিংদী মিডিয়া সমন্বয়ক রুপণ কুমার সরকার (পিপিএম) স্বাক্ষরিত প্রেস বিঞ্জপ্তি থেকে জানা যায়, পৌর শহরে পরিবারসহ ভাড়া থাকেন ওই নারী শ্রমিক। সে স্থানীয় একটি স্পিনিং মিলে শ্রমিকের কাজ করে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে খাবার কেনার জন্য মিলের বাইরে বের হয়।

নরসিংদী মডেল থানাধীন চৌয়ালা সাকিনস্থ বালুর মাঠ সংলগ্ন গোলাপ মেম্বরের মিলের দক্ষিণ-পূর্ব কোনে ফাঁকা জায়গায় পূর্ব পরিচিত ইয়ামিন নামে এক ছেলের সাথে আলাপ চারিতার সময় চৌয়ালা এলাকার মৃত ওয়ারেশ আলীর ছেলে মনিরসহ আরো তিন অজ্ঞাত যুবক ইয়ামিনকে মারধর করে আহত করে।

পরে ওই নারী শ্রমিককে পার্শবর্তী বালুর মাঠের একটি খোলা জায়গায় নিয়ে যায়। পরে সেখানে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। পরে শুক্রবার দুপুরে মনিরসহ অজ্ঞাত আরো তিনজনেরে বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতনের শিকার ওই নারী শ্রমিক।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) আতাউর রহমান বলেন, আমরা গণধর্ষণের অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্ত ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। নির্যাতিত নারীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

 

শেয়ার করুন :