ফেনীর ছাগলনাইয়ায় হেফজ বিভাগের দুই ছাত্রকে বলাৎকার, প্রধান শিক্ষক আটক

আকাশছোঁয়া ডেস্ক : মাদ্রাসায় হেফজ বিভাগের দুই ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মাদ্রাসার বড় হুজুর (প্রধান শিক্ষক) হাফেজ আবু নাছেরকে (২৬) আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী অভিভাবকরা জানান, ২০ ও ২৯ জুলাই রাতে ফেনীর ছাগলনাইয়ার দারুল আরকান তাহফিজুল কুরআন মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের দুই ছাত্রকে বলাৎকার করেন আবু নাছের। এরপর করোনা পরিস্থিতিতে মাদ্রাসা বন্ধ হয়ে গেলে সকল ছাত্ররা বাড়িতে চলে যায়।

মাদ্রাসা খোলার পর বলাৎকারের শিকার দুই ছাত্রকে মাদ্রাসায় পাঠানোর ব্যবস্থা নেয় অভিভাবকরা। কিন্তু ওই ছাত্ররা মাদ্রাসায় যেতে অস্বীকার করে এবং প্রধান শিক্ষক কর্তৃক বলাৎকার হওয়ার বিষয়টি প্রকাশ করে। ঘটনা জানাজানি হলে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক হাফেজ আবু নাছের পালিয়ে যায়।

এরপর একজন ছাত্রের বাবা বাদী হয়ে ৫ অক্টোবর ছাগলনাইয়া থানায় নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ রাত সোয়া ১০টায় পশ্চিম ছাগলনাইয়া এলাকা থেকে হাফেজ আবু নাছেরকে আটক করে।

ছাগলনাইয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাহবুবুর রহমান পিপিএম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আবু নাছেরকে মঙ্গলবার সকালে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষণের স্বীকার দুই ছাত্রের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুমন চন্দ্র চক্রবর্তী জানান, অভিযুক্ত শিক্ষক আবু নাছের নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানার দক্ষিণ লতিফপুর গ্রামের রমিজ উদ্দিন হাজী বাড়ির মো. ওবায়দুল হকের ছেলে।

 

শেয়ার করুন :